Home / টিপস এন্ড ট্রিকস / অন্যদের তুলনায় আপনি বোকা নাকি বুদ্ধিমান !

অন্যদের তুলনায় আপনি বোকা নাকি বুদ্ধিমান !

আপনাকে সবাই বুদ্ধিমান বলে বাহবা দেয়। এতে আপনিও মনে মনে ভাবেন আহা আমার কতো বুদ্ধি? কিন্তু আপনি কি আসলেই বুদ্ধিমান? বিজ্ঞান কী বলে? কী কী লক্ষণ দেখে বোঝা যাবে আপনি অন্যদের চাইতে বেশি বুদ্ধিমত্তার অধিকারী?
১) আপনি ধূমপান করেন না

২০১০ সালে এক গবেষণায় ধূমপায়ী এবং অধূমপায়ী যুবকের আই কিউ এর পরীক্ষা করা হয়। ফলাফল হয় বিস্ময়কর। গড়ে ১৮-২১ বছর বয়সের ধূমপায়ীর আই কিউ ছিলো ৯৪, আর অধূমপায়ীর ছিলো ১০১। যারা দিনে এক প্যাকেটের বেশি ধূমপান করে তাদের আই কিউ ছিলো ৯০। ভাইদের মাঝে তুলনায় দেখা যায়, অধূমপায়ী ভাইটির আই কিউ বেশি।
২) আপনি সঙ্গীত শিখেছেন

ছোটবেলায় সঙ্গীত শিখে থাকলে তা শিশুদের মস্তিষ্ক বিকাশে অনেক সাহায্য করে। ২০১১ সালের এক গবেষণায় দেখা যায় মাত্র এক মাস সঙ্গীত শেখার পর ৪-৬ বছর বয়সী বাচ্চাদের কথায় বুদ্ধিমত্তার ছাপ পড়ছে। ২০০৪ সালের এক গবেষণায় দেখা যায়, ৬ বছর বয়সে ৯ মাস পিয়ানো শেখার পর বাচ্চাদের আই কিউ অনেক বেড়ে যায়।
৩) আপনি পরিবারের বড় ছেলে/মেয়ে

পরিবারের বড় ছেলেটি বা মেয়েটি বেশি বুদ্ধিমত্তার অধিকারী হয়ে থাকে। কিন্তু এর কারণ জেনেটিক নয়। মূলত পরিবারের পরিস্থিতির কারণেই প্রথম সন্তানটির বুদ্ধি বেশি হয়। এ কারণে তারা জীবনে বেশি সাফল্যও দেখতে পায়।
৪) আপনার ওজন ঠিকঠাক

ওজনের সাথে আবার বুদ্ধির কী সম্পর্ক? ২০০৬ সালের এক গবেষণা বলে, কোমরের মাপ যতো বেশি, বুদ্ধিমত্তা তত কম। দেখা যায়, যাদের BMI ২০ এর কম তারা স্মৃতিশক্তির পরিক্ষায় ভালো করছে। যাদের BMI ৩০ এর বেশি অর্থাৎ বেশ ভারী শরীরের অধিকারী, তারা অতোটা ভালো করছে না। এমন ভারী শরীরের মানুষদের বুদ্ধিমত্তা বয়সের সাথে খুব দ্রুত কমতেও দেখা যায়। অর্থাৎ সুস্থ শরীর মানে সুস্থ মস্তিষ্ক।
৫) আপনার বিড়াল আছে

কী অদ্ভুত! বিড়াল থাকুক আর কুকুর থাকুক, তাতে কী আসে যায়? ২০১৪ সালের এক গবেষণা বলে, বিড়াল যারা ভালোবাসেন তারা বুদ্ধিমত্তার পরীক্ষায় বেশি ভালো করে থাকেন। তাদের তুলনায় পোষা কুকুরের মালিকেরা কম বুদ্ধিমান হন।
৬) আপনি শৈশবে মায়ের দুধ পান করেছেন

এই কথাটা আমাদের দেশে বেশ প্রচলিত, যে ছোটবেলায় মায়ের দুধ পান করলে বাচ্চার মাথা ভালো হয়। আসলেও নিউজিল্যান্ড এবং ব্রিটেনের দুই আলাদা গবেষণায় দেখা যায়, ৩০০০ শিশুর মাঝে তাদেরই আই কিউ তুলনামূলকভাবে বেশি যারা শৈশবে মায়ের দুধ পান করে।
৭) আপনি বাঁ-হাতি

বাঁ-হাতি মানুষের চিন্তাভাবনা হয়ে থাকে অন্যদের চাইতে একটু আলাদা। আর এ কারণেই তাদের মাঝে সৃজনশীল মানসিকতা থাকে। ১৯৯৫ সালের এক গবেষণা বলে, তারা এমন সব চিন্তা করতে পারে যা অন্যরা পারে না। এ কারণেই সম্ভবত স্থাপত্যবিদ্যা এবং সঙ্গীতে তাদের বিচরণ বেশি।
৮) আপনি লম্বা

বাঁ-হাতি মানুষের মতোই, লম্বা মানুষের চিন্তাভাবনা হয়ে থাকে অন্যরকম। আমাদের দেশের যদিও বলা হয় লম্বা মানুষের বুদ্ধি হাঁটুর কাছে, গবেষণা বলে তা ঠিক নয়। প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটির এক গবেষণা বলছে, স্কুলে যাবার বয়স হবার আগেই অন্যদের তুলনায় লম্বা বাচ্চাদের মাঝে বুদ্ধিমত্তা বেশি হতে দেখা যায়।

ফেসবুক আইডি থেকে মন্তব্য করতে পারেন

টি মন্তব্য